শুক্রবার, ৩১ জুলাই, ২০২০

শিলিগুড়িতে বাড়ির চাল থেকে উদ্ধার মৃত মানুষের মাথার খুলি ও দেহের হার


শিলিগুড়িতে বাড়ির চাল থেকে উদ্ধার মৃত মানুষের মাথার খুলি ও দেহের হার

বাড়ির ভিতর থেকে উদ্ধার করা হল মাথার খুলি আর মানুষের হাড়। এই ঘটনার ফলে  ব্যাপক চাঙ্চল্য ডিঙিয়েছে শিলিগুড়ির সুভাষ পল্লি অঞ্চলে বাড়ির চালের থেকে উদ্ধার করা  হয়েছে ২টো মাথার খুলি। আর বাড়ির ভিতরে থেকে উদ্ধার হয়েছে মানুষের হাড়গোড়। কোথা থেকে এল এই সমস্ত মানুষের মাথার খুলি, হাড়গোড়? এই নিয়ে দানা বেঁধেছে  রহস্য, এ ঘটনাকে একদিকে যেমন তুলনা করা হচ্ছে ২০১৫ সালে কলকাতার রবিনসন স্ট্রিটের পার্থ দে-র ঘটনার কথা, তেমন অপরদিকে ভাবা হচ্ছে তন্ত্র সাধনার প্রসঙ্গ ও।

খবরের প্রকাশ শিলিগুড়ির সুভাষ পল্লির ওই বাড়ির বাসিন্দা ছিলেন খোকা চক্রবর্তী ও তাঁর স্ত্রী, বছর ১৫ আগে তাঁদের মৃত্যু হয়। ওই একই বাড়িতে  আগে বাবা, মায়ের সঙ্গে থাকতেন তাঁদের ভাগনে ভিক্টর চক্রবর্তী, ভিক্টর পেশায় বে সরকারি নিরাপত্তা রক্ষী ছিলেন, এলাকাবাসীর বক্তব্য, বেশ কিছুদিন আগে ভিক্টরের বাবা-মায়েদের মৃত্যু হয়। বাবা-মায়ের মৃত্যুর পর থেকেই মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন ভিক্টর, এর পরই এদিন বাড়ির ভিতর থেকে উদ্ধার হল মৃত মানুষের খুলি, হাড়গোড়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার বাড়ির ভিতর থেকে খুব দুর্গন্ধ বেরতে শুরু করে। তখনই খবর দেওয়া হয় এলাকার প্রাক্তন কাউন্সিলর নিখিল সাহানিকে। এর পরই আজ বাড়ি পরিষ্কার করতে আসেন কর্পোরেশনের সাফাই কর্মীরা। তাঁরাই বাড়ির চালের উপর মানুষের মাথার খুলি ও ভিতর থেকে হাড়গোড় উদ্ধার করেন। এ প্রসঙ্গে নিখিল সাহানি জানিয়েছেন, "মঙ্গলবার এলাকা বাসী জানায়, এলাকা থেকে খুব দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। আজ আমি তাই লোক পাঠাই পরিষ্কার করার জন্য। তাঁরাই আমাকে খবর দিয়ে গোটা ঘটনা জানান। পুলিস তদন্ত করছে গোটা ঘটনার।"

এই ঘটনায় তুমুল চাঙ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। কোথা থেকে কীভাবে বাড়ির ভিতর এই খুলি, হাড়গোড় এল? উঠছে প্রশ্ন। মামা-মামী র মৃত্যু হয়েছে বহু বছর আগেই। বাবা, মায়ের মৃত্যু পরেও শ্মশানে দেহ দাহ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় রা। তবে? দানা বেঁধেছে রহস্য। পুলিস সূত্রে খবর, প্রাথমিক তদন্তের পর তদন্তকারী অফিসার রা মনে করছেন ভিক্টর সম্ভবত তন্ত্র সাধনা করতেন। কিন্তু তাহলেও প্রশ্ন উঠছে এই দেহাংশ কার?

এদিকে ঘটনার পর থেকেই পলাতক ভিক্টর চক্রবর্তী। উদ্ধার হওয়া খুলি, হাড়গোড় নিয়ে গিয়েছে পুলিস। শুরু হয়েছে পলাতক ভিক্টর চক্রবর্তী র খোঁজ। এলাকাবাসীর বক্তব্য, মা-বাবার মৃত্যুর পর থেকে মানসিকভাবে ভেঙে পড়ে ভিক্টর। বাড়িতে সেভাবে কেউ আসা যাওয়া করেন না। ইদানীং পাড়ার লোকদের নজরে খুব একটা আসেননি।

মা হতে চলেছেন শুভশ্রী সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করলেন সেই ছবি

মা হতে চলেছেন শুভশ্রী গঙ্গোপাধ্যায়। আর মাত্র দুমাস পর মা হতে চলেছেন শুভশ্রী নিজেদের সোশ্যাল মিডিয়াতে সেই ছবি শেয়ার করলেন রাজ আর শুভশ্রী।
নিজের ইজের ইন্সটাগ্রাম প্রফাইল এ শেয়ার করলেন শুভশ্রীর বেবি বাম্প এর ছবি শেয়ার করে চিত্র-দম্পতি জানালেন মা হতে চলেছেন নায়িকা শুভশ্রী।
 

মা হতে চলেছেন শুভশ্রী গঙ্গোপাধ্যায়। টলি কাপল রাজ-শুভশ্রীর  ঘর আলো করে আসছে নতুন আতিথি। কিছুদিন আগেই সোশ্যাল মিডিয়ায় সুখবর জানিয়েছিলেন টলিপাড়ার পাওয়ার কাপল। এবার তুলে ধরলেন শুভশ্রীর বেবি বাম্পের ছবি। ইনস্টাগ্রামে নিজের আদরের শুভর সঙ্গে সেই ছবি শেয়ার করলেন রাজ।
খবরটা শুভশ্রীর ফ্যানেদের কানে পৌঁছনোর জন্য ফোটো তুললছিলেন রাজ-শুভশ্রী। তবে তাঁদের এই বিশেষ বার্তা 'ইউ আর প্রেগন্যান্ট' কথাটি নজর কেড়েছে আনেক ফ্যানের।


ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের বাংলা মাধ্যমে বলা হয়, সোমবার রাজ-শুভশ্রীর বিয়ের দ্বিতীয় বর্ষপূর্তির দিনে নিজের ইনস্ট্রাগ্রাম অ্যাকাউন্টে শুভশ্রীর বেবি বাম্পের ছবি পোস্ট করেন রাজ।

ছবিতে লক্ষ্য করা যায়, দক্ষিণ ভারতীয় সাবেকি শাড়িতে সাবেকী সাজে রয়েছেন শুভশ্রী, পাশে দাঁড়িয়ে রয়েছেন রাজ। ছবিটির ক্যাপশনে রাজ লিখেছেন, ‘তোমার বাইরের ও অন্তরের সৌন্দর্য আমায় বারবার অভিভূত করে। মনে হয় ক্লাউড নাইনে আছি।’


আর মাত্র দুমাস পর মা হতে ছলেছেন শুভশ্রী গাঙ্গুলি, সোমবার (১১ মে) শুভশ্রী তার টুইটার প্রফাইলে লিখেছেন, ‘আমাদের দ্বিতীয় বিবাহবার্ষিকীতে আমরা আনন্দের সঙ্গে ঘোষণা করছি যে, হাত ধরার মতো আমরা আরও একজোড়া হাত পেতে চলেছি এবং ভালোবাসার জন্য আরও একটি হৃদয়। আমি সন্তানসম্ভবা!’


স্বামী ও চিত্রপরিচালক রাজ চক্রবর্তীর সাথে একটি ছবি শেয়ার করেছেন শুভশ্রী। সেই ছবিতেও ঘোষণা রয়েছে তাদের কোল আলো করে নতুন ছোট্টো অতিথি আগমনের।
ছবিতে রাজের পরনের টি-শার্টে লেখা ‘ড্যাড টু বি’, আর শুভশ্রীর পরনের টি-শার্টে লেখা ‘দিস গার্ল ইজ গোয়িং টু বি অ্যা মাম্মি’। সহজেই বোঝা যাচ্ছে, নিজেদের এই সুখবরে দারুণ উচ্ছ্বসিত এই তারকা জুটি।


'সুশান্ত অবসাদগ্রস্ত ছিল না'' সুশান্ত কে নিয়ে প্রথম বার মুখ খুললেন অঙ্কিতা লোখান্ডে

বিকাশ বাংলা সংবাদ: সুশান্ত সিং রাজপুতের রহস্য জনক মৃত্যু নিয়ে এবার মুখ খুললেন তাঁর প্রাক্তন বান্ধবী অঙ্কিতা লোখান্ডে। সম্প্রতি রিপাবলিক টিভির লাইভ অনুষ্ঠানে প্রথমবার সুশান্ত কে নিয়ে প্রকাশ্যে কিছু বলেন তার প্রাক্তন বান্ধবী অঙ্কিতা। তিনি স্পষ্ট বলেন সুশান্ত কখনওই মানসিক ভাবে অবসাদগ্রস্ত ছিলেন না।
সুশান্ত সিং রাজপুত

অঙ্কিতাকে প্রকাশ্যেই বলতে শোনা যায়-
''সুশান্তকে যেভাবে বারবার মানসিক অবসাদগ্রস্ত বলা হচ্ছে, সেটা সবথেকে বড় ভুল শব্দ। কোনওভাবেই এটা সত্যি হতে পারে না। কোনও ঘটনায় সুশান্তের সাময়িক মন খারাপ হতে পারে, তাকে মানসিক অবসাদ বলা যায় না। মানসিক অবসাদ শব্দটা অনেক বড় শব্দ। কোনও কারণ ছাড়াই কীভাবে কেউ কাউকে মানসিক অবসাদগ্রস্ত বলতে পারেন?''
বেশকিছুটা উত্তেজনার বশবর্তী হয়েই অঙ্কিতাকে এই জাতীয়  মন্তব্য করতে শোনা গেল-
সুশান্ত আঙ্কিতা লোখান্ডে
রিপাবলিক টিভির প্রতিবেদন অনুসারে অঙ্কিতা লোখান্ডে বলেন-
''যখন আমি প্রথম শুনলাম ও আত্মহত্য করেছে, বিষয়টা আমি মানতে পারিনি। এটা বিশ্বাস করতে আমার বেশ কিছুটা সময় লেগেছে। সুশান্ত সেইধরনের ছেলেই ছিল না, যে কোনও কিছুতে মন খারাপ করে এত বড় পদক্ষেপ নেবে। আমরা যখন একসঙ্গে থাকতাম, তখন আরও অনেক কঠিন পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়েছি আমরা। সুশান্তের ঘরের বিভিন্ন ভিডিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হচ্ছিল। অনেকেই বলছেন এটা আত্মহত্যা বললেও আমি বিশ্বাস করিনি। সুশান্ত ডায়েরি লিখতে ভালো বাসতো, আমরা যখন সম্পর্কে ছিলাম, তখন ও লিখেছিল আগামী ৫ বছর পর ও নিজেকে কোথায় দেখতে চায়। আর ও সেই জায়গায় নিজেকে পৌঁছে নিয়ে গিয়েছিলো অনেকেই ওকে দিমেরুর মানুষ বলছেন। আমি জোর গলায় বলতে পারি, ও মানসিক অবসাদগ্রস্ত ছিল না, সকলেই মনে করছেন, তাঁরা সুশান্তকে জানেন, এটাই কষ্ট দিচ্ছে, ও খুবই আবেগপ্রবণ ছিল, একেবারে ছোটো শিশুদের মতো, ও বলত ও চাষাবাদ করবে, আর কিছুই না হলে শর্টফিল্ম করবে, মানসিকভাবে ভেঙে পড়ার  মতো ছেলে ও কখনওই ছিল না।"

করোনা প্রতিরোধের কিছু গুরুত্বপূর্ণ উপায় - কি বলছেন ভাইরাস বিশেষজ্ঞরা

বর্তমানে ভারতবর্ষ, বাংলাদেশ, পাকিস্তান, শ্রীলংকা প্রভৃতি এশিয়ান দেশ গুলি ছাড়াও সারা পৃথিবীতে বিভিন্ন দেশে করোনা ভাইরাস এক ধরণের তাণ্ডব চালাচ্ছে।

এই পরিস্থিতিতে এইসব দেশ গুলিতে এত লোক অসুস্থ হয়ে পড়ছে যে সরকারি হাসপাতাল গুলিতে তিল ধরণের জায়গা ও পাওয়া মুশকিল হয়ে উঠেছে, সাধারণ মানুষের মধ্যে এত পরিমান ভয়ের সঞ্চার হয়েছে যে তারা হাসপাতাল, নার্সিংহোম, ডাক্তার বাবুদের চেম্বারে যেতেও ভয় পাচ্ছেন। বাড়ির করোও  জ্বর বা কিছু হলে পাশের বাড়ির লোকজন অবধি ভয়ে এগিয়ে আসছেন না, পাছে তাদেরও এই ভয়াল রোগ মানে করোনা হয়ে যায়।
নোভেল কোরোনাভাইরাস। প্রতীকী চিত্র।

আসুন জেনে নেই কি করলে করোনা ভাইরাস কে আটকানো সম্ভব,

ভাইরাস বিশেষজ্ঞ দের মতে -

১. জ্বর বা সর্দি হলেই তা করোনা বা COVID-19 নয়, আপনার বাড়ির কারুর যদি জ্বর অথবা সর্দি কাশি হয় তবে তার প্রাথমিক চিকিৎসা বাড়িতে থেকেই করুন, বাড়িতে সাধারণ জ্বর বা সর্দি হলে যেই সকল ঔষধ যেমন প্যারাসিটামল, কফ সিরাফ দিন।

২.  গরম জলে কুলকুচি বা গারগেল করুন তাতে ভাইরাস যদি আপনার মুখে প্রবেশ করেও থাকে তবে তা বিনষ্ট হবে।

৩. দিনে অন্তত দুইবার মাউথ ওয়াশ দিয়ে মুখ ধোবেন। এতে মুখ অথবা নাক দিয়ে ভাইরাস প্রবেশ করলে তা বিনষ্ট হয়ে যাবে।

৪. কোথাও বেরোলে মাস্ক অবশ্যই পড়বেন। কারণ করোনা ভাইরাস বেশির ভাগ ক্ষেত্রে আমাদের মুখ এবং নাকের মাধ্যমে আমাদের শরীরে প্রবেশ করে।

৫. সব সময় সোশ্যাল ডিস্টেন্স বজায় রাখার চেষ্টা করবেন।

৬. বাইরে থেকে ঘরে প্রবেশ করে হাত পা ভালো করে সাবান দিয়ে ধুয়ে নিন।

৭. জ্বর সর্দি অথবা গা হাত পা ব্যথা অনুভব করলে সঙ্গে সঙ্গে ঔষধ নিতে শুরু করুন, তবে মাথায় রাখবেন ডাক্তার এর পরামর্শ ছাড়া কোনো রকম এন্টিবায়োটিক সেবন করবেন না।

৮. খাবার খাওয়ার আগে হাত সাবান দিয়ে ভালো করে ধুয়ে নেবেন।

৯. গায়ে যদি রাষ্ বেরোয় অথবা চোখে অঞ্জনী হয় তবে সেগুলিও করোনা ভাইরাস এর লক্ষণ তাই এই সব উপসর্গ দেখা দিলে পারিবারিক ডাক্তার এর পরামর্শ নিন।

১০. করোনা ভাইরাস বা COVID-19 কোনো মরণ রোগ নয় তাই অযথা ভয় পাবেন না, লোক কেও ভীত করে তুলবেন না। যথা যত ঔষধ নিলে ইহা তে সুস্থ হয়ে ওঠা কোনো কঠিন ব্যাপার নয়।

১১. সব শেষে আপনার পাড়াতে অথবা আপনার পরিচিতির মধ্যে কারুর যদি COVID-19 হয়ে থাকে অথবা করোনা পজিটিভ আসে তবে তাকে ঘৃণা করবেন না, তার মনোবল বৃদ্ধি করুন তার প্রয়োজনের সামগ্রী তাকে পৌঁছে দিতে সাহায্য করুন।

১২. অযথা ভয়ের পরিবেশ তৈরি হতে দেবেন না।

আমাদের সকলের মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে সমাজকে করোনা মুক্ত করা সম্ভব এটা বিশ্বাস করুন।

পুনশ্চ: আপনার যদি আমাদের এই প্রতিবেদনটি ভালো লেগে থাকে তবে আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন এবং করোনা মুক্ত দেশ গঠন করতে সাহায্য করুন।

বৃহস্পতিবার, ৩০ জুলাই, ২০২০

SBI এর ATM এ শুরু হতে চলেছে ১০ টি বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ পরিসেবা সম্পূর্ণ বিনামূল্যে

দেশজুড়ে এক কোঠীণ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে করুণা ভাইরাস এর কারণে, আর এই ভোয়াণক পরিস্থিতি তে মানুষ ভিশন রকম ভয় পাছে ব্যাংকে যেতে, তাই এরম এক পরিস্থিতি তে SBI তাদের সকল গ্রাহকদের জন্য সুরু করতে চলেছে ১০ টি নতুন পরিসেবা, যা পাওয়া যাবে তাদের ATM  গুলি থেকে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে

SBI এর ATM এ শুরু হতে চলেছে ১০ টি বিশেষ গুড়ূত্বপূর্ণ পরিসেবা সম্পূর্ণ বিনামূল্যে

টাকা তোলা বা ব্যালেন্স  চেক করা ছাড়াও এখন থেকে SBI এর ATM এ শুরু হতে চলেছে এই ১০ টি বিশেষ গুড়ূত্বপূর্ণ পরিসেবা -

১) আয়কর জমা দেওয়া - এবার আপণী আপনার ATM CARD এর মারফৎ আয়কর অর্থাৎ আডভাণস টাক্স, SELF ASSESSMENT TAX ইত্যাদি জমা দিতে পারবেন।ACCOUNT থেকে টাকা কাটার পর CIN NO দেওয়া হবে, এর ২৪ ঘণ্টা পর BANK WEB SITE থেকে লগ ইন করে চালান বের করে ণীটে পারবেন গ্রাহক রা।

২) FD সুরু করা - এখন থেকে ব্যাংক এ লাইন না দ্বিয়ে ATM এর মাধ্যমে প্রয়োজনীয় FD সুরু করতে পারবেন খুব সহজেই ।
এবার থেকে এটিএম স্ক্রিন এই দেয়া থাকবে কতদিনের জন্য কোটো টাকাড় এফডি করতে চান, ব্যাস আর কী আপনার পছন্দসই এফডি করতে পারবেন এখন ATM থেকে।

৩) LIFE INSURANCE DEPOSIT - LIFE INSURANCE এর টাকা জমা দেওয়ার সুবিধাও আখোণ পাবেন SBI এর ATM থেকে ।

৪) পার্সোনাল লোণ এর জন্য ও সহজেই এপলাই করার সহজ সুযোগ এখন পাবেন  SBI ATM থেকে ।

উপরের সুবিধা গুলি ছাড়াও এখন থেকে জেকোণো ACCOUNT এ টাকা পাঠাণো , টাকা জমা, যেকোনো রকম বিল যেমন বিদ্যুৎ বিল, টেলিফোন বিল, গ্যাস বিল ইত্যাদি জমা দিতে পারবেন SBI এর ATM থেকে।



জেনে নিন কোরান এর পাঁচটি বিস্ময়কর তথ্য - এই পৃথিবী তথা মহাবিশ্ব নিয়ে

জেনে নিন কোরান এর পাঁচটি বিস্ময়কর তথ্য - এই পৃথিবী তথা মহাবিশ্ব নিয়ে

 
পবিত্র কোরান হল সত্যিই একগুচ্ছ বিস্ময়ের ভাণ্ডার। অক্ষর থেকে শব্দ, শব্দ থেকে বাক্য জাণা-অজানা সব জ্ঞান-বিজ্ঞানের উন্মুক্ত বিশ্বকোষ। তেমনি আমরা যে গ্রহে বসবাস করি, অর্থাৎ পৃথিবী এ সম্পর্কেও কোরআনে রয়েছে বৃহৎ তথ্যভাণ্ডার। মহান আল্লা বলেন, বিশ্বাসীদের জন্য এই পৃথিবীতে অসংখ্য নিদর্শনাবলি রয়েছে। (সুরা : জারিয়াত, আয়াত : ২৩)

5 MISTIOUS FACT FROM KORAN SARIF
মহান আল্লাহ তার সৃষ্টিতত্ত্ব বিশ্লেষণ নিঃসন্দেহে একটি বড় ইবাদত। পবিত্র কোরআনে তার মানুষকে নিজের সৃষ্টি ও আশপাশের সৃষ্টিজগতের প্রতি অনুসন্ধিৎসু  দৃষ্টিদানের নির্দেশ দেয়া হঈয়াছে। আর পবিত্র কোরআন সেই কারণে অদ্বিতীয় নির্ভরযোগ্য উৎস। চলুন দেখি মহাগ্রন্থ কোরান এ পৃথিবী ও মহাকাশবিষয়ক কী কী বিস্ময়কর তথ্য রয়েছে।
তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য পাঁচটি বিস্ময়কর তথ্য এখানে উল্লেখ করা হলো—

বিস্ময়কর তথ্য ১ - পৃথিবীর সূচনা মহাবিস্ফোরণের মাধ্যমে

খুব বেশি দিন আগের কথা নয় যে মানুষ জানতে পেরেছে মহাবিশ্বের সূচনা এক মহাবিস্ফোরণের মাধ্যমেই ঘটেছে।  আজ থেকে প্রায় এক হাজার ৫০০ বছর আগে বিশ্বস্রষ্টা তাঁর মহাগ্রন্থ আল-কোরানে এই ব্যাপারে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন। ‘অবিশ্বাসীরা কি দেখে না যে সপ্তাকাশ ও পৃথিবী পুঞ্জীভূত হয়ে ছিল। অতঃপর আমি উভয়টি এক মহাবিস্ফোরণের মাধ্যমে সূচনা করেছি।’ (সুরা : আম্বিয়া, আয়াত : ৩০)

বিস্ময়কর তথ্য ২ - মহাকাশ সৃষ্টির আগে পৃথিবীর সৃষ্টি

মহাকাশ নাকি পৃথিবী? আকাশের গ্রহ-নক্ষত্র নাকি পৃথিবীর গাছপালা কোনটি আগে সৃষ্টি হয়েছে? উত্তর খুঁজতে হলে বেশি দূর যেতে হবে না। আপনার ঘরের পবিত্র কোরান টীকে হাতে নিন। তাতে চোখ বুলালেই দেখতে পাবেন, ‘আপনি বলুন, সত্যিই কি তোমরা সেই মহাপ্রভুকে অস্বীকার করছ! যিনি পৃথিবীকে মাত্র দুদিনে সৃষ্টি করেছেন এবং তার অংশীদার নির্ধারণ করছেণ ? তিনি তো সমস্ত জগতের প্রতিপালক। যিনি পৃথিবীতে তার উপরের স্থানে পাহাড় স্থাপন করেছেন এবং মাটীর ভিতরাংশ বরকতপূর্ণ করেছেন আর ভূগর্ভে জোঠেষ্ট খাদ্যদ্রব্য মজুদ করেছেন মাত্র চার দিনে। সবার জন্য সমানভাবে। সুতরাং তিনি আকাশের দিকে মনোনিবেশ করলেন আর তা ছিল ধোঁয়াশাচ্ছন্ন। (সুরা : ফুসিসলাত, আয়াত : ৯-১১) এখানে পর্যায়ক্রমে প্রথমে পৃথিবী সৃষ্টি এরপর ভূগর্ভস্থ বিষয় সমূহের আলোচনার পর আসমানের কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

বিস্ময়কর তথ্য ৩ - ক্রমে সংকীর্ণ হয়ে আসছে পৃথিবীর পরিধি

পদার্থবিজ্ঞানীদের গবেষণামতে পৃথিবী তার জোণ্মলগ্ন থেকে এ পর্যন্ত মাটীর তলার জলের এক-চতুর্থাংশ জল হারিয়েছে। বিজ্ঞানীদের ধারণামতে পৃথিবীর ভার বা ওজন (৫,৯৭২,০০০,০০০,০০০,০০০,০০০,০০০) অর্থাৎ ৫ সেক্সটিলিয়ন ৯৭২ কুইন্টিলিয়ন। গবেষণায় এটাই প্রমাণিত হয়েছে যে প্রতিবছর পৃথিবী তার মোট ওজন থেকে ৫০০ টন ওজন হারাচ্ছে। এ ছাড়া অক্সিজেনের ভাগ প্রতিনিয়ত কমে আসাও হালের বিজ্ঞানীদের কাছে চীণতার বিষয়। যা থেকে তারা নিশ্চিত হয়েছে যে পৃথিবীর পরিধি ক্রমেই সংকুচিত হয়ে আসছে। অন্যদিকে মহান আল্লা বলেন, ‘তারা কি দেখে না আমি ভূপৃষ্ঠের পরিধি ক্রমেই সংকুচিত করে আনছি, এর পরও কি তারাই বিজয়ী!’ (সুরা : আম্বিয়া, আয়াত : ৪৪)

বিস্ময়কর তথ্য ৪ -পৃথিবী দ্রুতগতিতে ছুটে চলেছে

পবিত্র কোরানে পৃথিবী স্থির কিংবা সূর্যের পাশে ঘূর্ণমান কোনোটিই বলা হয়নি। বরং এ বিষয়ে পবিত্র কোরানে যা এসেছে তার সারকথা হলো, পৃথিবী আপন কক্ষপথে দ্রুতগতিতে সাঁতার কাটার মতো ঢেউ খেলে ছুটে চলেছে। বিজ্ঞানীদের মতে, পৃথিবীর চলন প্রকৃতি প্রধানত দুই ধরনের। প্রথমত, পৃথিবীর নিজস্ব ঘূর্ণায়ন যা ঘণ্টায় প্রায় এক হাজার ৬০০ কিলোমিটার। পবিত্র কোরআনে মহান আল্লা বলেন, ‘মহান আল্লাহ যিনি আসমান জমিন যথাযথভাবে সৃষ্টি করেছেন এবং দিনকে রাতের ওপর এবং রাতকে দিনের ওপর আচ্ছাদিত করেন।’ (সুরা : জুমার, আয়াত : ৫) আর এ কথা শিরোধার্য, কোনো বৃত্ত আকৃতির জিনিসকে অনুরূপ অন্য কোনো জিনিস দ্বারা বারবার আচ্ছাদিত করার জন্য, তা ঘূর্ণমান হওয়ার বিকল্প নেই। দ্বিতীয়ত, সূর্যকে ঘিরে পৃথিবীর সন্তরণ। বহুকাল যাবৎ মানুষ এ ধারণা পোষণ করে আসছে যে পৃথিবী সূর্যের পাশে ঘূর্ণমান। তবে খুব সাম্প্রতিক সময়ে মহাকাশ গবেষকরা নিশ্চিত করেছেন যে সূর্যকে ঘিরে পৃথিবীর চলার ধরনটাকে ঘূর্ণন শব্দে ব্যাখ্যা করা যথাযথ নয়। বরং পৃথিবীসহ আরো অনেক গ্রহ উপগ্রহ সর্বদা সূর্যকে ঘিরে সাঁতার কাটার মতো ওপর-নিচ ঢেউ তুলে সম্মুখপানে অগ্রসর হচ্ছে। মহান আল্লা পবিত্র কোরানে চাঁদ, সূর্য ও পৃথিবীর আলোচনা টেনে বলেন, প্রত্যেকেই আপন কক্ষপথে সন্তরণ করছে। (সুরা : ইয়াসিন, আয়াত : ৪০)

বিস্ময়কর তথ্য ৫- পৃথিবীর নিচে বিপুল পানির উৎস

টিউবওয়েল থেকে জল তুলছেন কিংবা পাম্পের সাহায্যে। কিন্তু কখনো কি ভেবেছেন মাটীর নিচের এই বিপুল পরিমাণ জলের উৎস কোথায়? তাহলে জেনে নিন, মহান আল্লা  বলেন, ‘আমি আসমান থেকে পরিমাণমতো পানি বর্ষণ করি, এরপর তা ভূগর্ভে সংরক্ষণ করে রাখি।’ (সুরা : মুমিনুন, আয়াত : ১৮)

সংগৃহীত : মুফতি সাআদ আহমাদ এর লেখা থেকে, শিক্ষক, ইমদাদুল উলুম রশিদিয়া মাদরাসা, ফুলবাড়ী গেট, খুলনা।

বাহুবলীর পরিচালক এস এস রাজামৌলী ও তাঁর গোটা পরিবারের করোনা সংক্রমণ

বাহুবলীর পরিচালক এস এস রাজামৌলী ও তাঁর গোটা পরিবারের করোনা সংক্রমণ

এবার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বাহুবলীর পরিচালক এস এস রাজামৌলীসহ পরিবারের

এবার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বাহুবলীর পরিচালক এস এস রাজামৌলীসহ পরিবারের সবাই। হোম কোয়ারেন্টাইনেই থাকবেন রাজামৌলী। বুধবার টুইটারে এসব জানান প্রখ্যাত পরিচালক।

এস এস রাজামৌলী

রাজামৌলী জানান, কয়েকদিন যাবত জ্বরে ভুগছিলেন তিনি ও তার পরিবারের সদস্যরা

রাজামৌলী জানান, কয়েকদিন যাবত জ্বরে ভুগছিলেন তিনি ও তার পরিবারের সদস্যরা। এখন অবশ্য জ্বর কমেছে। কিন্তু সেই সময় করা কোভিড টেস্টের যেই ফলাফল এসেছে যাতে দেখা যাচ্ছে শরীরে আছে করোনা। যেহেতু তেমন কোনও লক্ষণ নেই, চিকিৎসকরা পরামর্শ দিয়েছেন বাড়িতে কোয়ারেন্টাইন করার বলেই জানান রাজামৌলী। এ কারনে সতর্কতা বসত হাসপাতালে ভর্তি হননি তিনি।


www.bikashbagla.com


করোনা হওয়ার ঠিক আগে  RRR বলে একটি ছবির শুটিং শুরু করছিলেন রাজামৌলী

করোনা হওয়ার ঠিক আগে  RRR বলে একটি ছবির শুটিং শুরু করছিলেন রাজামৌলী। তামিল, তেলেগু ও হিন্দি, তিনটি ভাষতে তৈরী হচ্ছে RRR ছবি। আছেন জুনিয়র এনটিআর, রাম চরণ, অজয় দেবগন ও আলিয়া ভাট। 
দুই স্বাধীনতা সংগ্রামীর জীবনগাথা হল RRR। ৪০০ কোটি টাকা বাজেটের এই ছবি মুক্তি পাওয়ার কথা আগামী বছরের ৮ জানুয়ারি। ছবির ৭৫ শতাংশ শুটিং শেষ। বাকিটা হবে হায়দরাবাদে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পরে। তারমধ্যেই করোনায় আক্রান্ত হলেন রাজামৌলী।

দশ বছর পর আবার একসাথে চঞ্চল চৌধুরী, শামীম জামান, আ খ ম হাসান, শাহনাজ খুশি ও বৃন্দাবন দাস - নাটক ‘ট্রাম কার্ড’

শেষ জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘হাড়কিপ্টা’ নাটকে একসঙ্গে দেখা গিয়েছিল চঞ্চল চৌধুরী, শামীম জামান, আ খ ম হাসান, শাহনাজ খুশি ও বৃন্দাবন দাসকে। এরপর টানা দশ বছর কোনো নাটকে একসঙ্গে কাজ করতে দেখা যায়নি তাদের। অভিমান করেই তারা আর একসঙ্গে অভিনয় করেননি শেষ পর্যন্ত  তাদের সেই অভিমান ভাঙলো।

একসঙ্গে অভিনয় করলেন ‘ট্রাম কার্ড’ নাটকে।



বৃন্দাবন দাসের রচনায় নাটকটি নির্মাণ করেছেন শামীম জামান। এরা ছাড়াও অভিনয় করেছেন মৌসুমী হামিদ, আরফান আহমেদসহ অনেকে। নাটকটি এনটিভিতে ইদে প্রচারিত হবে।

এ প্রসঙ্গে শামীম জামান বলেন, "একসঙ্গে কাজ করতে গিয়ে নিজেদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি হয়। ছোট সেই ভুলটি আমাদের এক দশক আলাদা করে রাখে। সাত মাস আগে সিদ্ধান্ত নিই, মান-অভিমান পুষে রাখলে চলে না। আমাদের এই টিমের মধ্যে বোঝাপড়াটা ভালো ছিল।"

শামিন জামান আরো বলেন, "সেই বোঝাপড়াটা ফিরিয়ে আনতে সবার সঙ্গে আবার যোগাযোগ করি। অতঃপর এনটিভির জন্য নির্মিত এ ধারাবাহিকের মাধ্যমে অভিমানের অবসান হলো। ফের একত্রে ফ্রেম বন্দী হয়ে বেশ আনন্দ লাগছে।"

‘ট্রাম কার্ড’ নাটকে আভিনয় প্রসঙ্গে চঞ্চল চৌধুরী বলেন, "আমাদের দেখা হতো, কথা হতো, একত্রে কাজ করা হয়নি। অনেক দিন পর একসঙ্গে কাজ করতে ভালো লাগছে। আমাদের এই টিমের ‘পত্রমিতালি’, ‘গরুচোর’, ‘ঘরকুটুম’, ‘আলতা সুন্দরী’, ‘সাকিন সারিসুরি’র মতো ‘টাম কাড’ নাটকটিও দর্শক পছন্দ করবেন বলে আশা করছি।"


দীর্ঘদিন একসঙ্গে কাজ না করার জন্য দুঃখপ্রকাশ করেন শাহনাজ খুশিও, তিনি বলেন- " বেশ কিছু কারণে আগের টিমের সঙ্গে কাজ করা হয়নি। অবশেষে একসঙ্গে কাজটি করা হলো। ঈদের পরও আগের মতো একসঙ্গে নতুন নাটকে কাজ করা হবে।"


বৃন্দাবন দাস বলেন- "হাড়কিপ্টা’ নাটকে বহু তারকা কাজ করতেন। তাদের খরচ, আমার ও সালাউদ্দিন লাভলুর সম্মানী নিয়ে ভুল-বোঝাবুঝি সৃষ্টি হয়েছিল। দশ বছর পর শামীম আবেগঘন একটা এসএমএস পাঠাল, তখন মনে হলো কাজের জায়গায় আমাদের এক হওয়া দরকার। সেই জায়গা হলো ‘ট্রাম কার্ড’। আশা করবো নাটকটি দর্শকদের ঈদে বিনোদনের খোড়াক জোগাবে।"

বুধবার, ২৯ জুলাই, ২০২০

ইদ মুবারক শুভেচ্ছা ছবি ডাউনলোড করুন

বন্ধুরা ইদের শুভ মুহূর্তে সকলকে জানাই খুশির ঈদ এর শুভেচ্ছা। ঈদ আসতে আর বেশি দেরি নেই তাই কিছু ভাল ঈদ মুবারক শুভেচ্ছা মেসেজ (message) নিয়ে হাজির আমরা , আমরা মানে টিম বিকাশ বাংলা ।

এই message গুলি আপনারা SMS এর মাধ্যমে অথবা EID PICTURE MESSAGE হিসাবে আপনাদের বন্ধু দের কাছে পাঠাতে পারেন।

 ঈদ  হইলো আমাদের মুসলমান ভাইদের একটি বিশেষ আনন্দের পরব - এই বিশেষ আনন্দের সময়ে তোমাদের সকলকে আবার জানাই ঈদ মুবারক এর শুভেচ্ছা।

ইদ মুবারক শুভেচ্ছা ছবি -

eid mubarak wish picture sms in bengali







ইদ মুবারক শুভেচ্ছা ছবি -

eid mubarak wish picture sms in bengali

  
ইদ মুবারক শুভেচ্ছা ছবি -

eid mubarak wish picture sms in bengali

ইদ মুবারক শুভেচ্ছা ছবি -

eid mubarak wish picture sms in bengali

 
ইদ মুবারক শুভেচ্ছা ছবি -

eid mubarak wish picture sms in bengali
 
ইদ মুবারক শুভেচ্ছা ছবি -

eid mubarak wish picture sms in bengali

ইদ মুবারক শুভেচ্ছা ছবি -

eid mubarak wish picture sms in bengali







শুরু হবে করোনা টিকার ট্রায়াল, ভারতের পাঁচ যায়গায় সুরু হোতে চলেছে এই পরীক্ষা

শুরু হবে করোনা টিকার ট্রায়াল, ভারতের পাঁচ যায়গায় সুরু হোতে চলেছে এই পরীক্ষা 

দেশের এবং সারা বিশ্বের জন্য সুখবর নিয়ে এলো অক্সফোর্ড (OXFORD) এর করুনা টিকা গবেষণা এর ফলাফল। 

করুণা প্রতিষেধক
ব্রিটিশ পত্রিকা ‘দি ল্যানসেট’ (The Lancet) এর খবর আণূজায়ী ৯০ শতাংশ স্বেচ্ছাসেবকের শরীরেই করোনা-রোধী শক্তিশালী অ্যান্টিবডি এবং টি-সেল তৈরি করতে সফল হয়েছে এই টিকা। যা টিকাটীর সফল হবার সুফল প্রমান করে । 

অভূতপূর্ব এই সফলতার খতিয়ান নজরে আসার পরই ভারতে এই টীকার পরীক্ষা মূলোক প্রয়োগের তোড়জোড় শুরু করে দিয়েছিল এটির তৈরির দায়িত্বে থাকা বিশ্বের বৃহত্তম টিকা প্রস্তুতকারক সংস্থা সিরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়া (Serum Institute of India)। এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রক সংস্থা ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অব ইন্ডিয়ার (DCGI) কাছে অনুমতিও চাওয়া হয়েছে সিরাম ইনস্টিটিউটের পক্ষ থেকে। অবশেষে ছাড়পত্র মিলেছে। দেশের মোট পাঁচটি জায়গায় করা হবে অক্সফোর্ডের করোনা টিকার (ডিএনএ ভেক্টর ভ্যাকসিন) হিউম্যান ট্রায়াল অর্থাৎ মানব জাতীর উপর পরীক্ষা । মঙ্গলবার এমনটাই জানিয়েছে কেন্দ্রের বায়োটেকনোলজি বিভাগ (DBT)।

 ভারতের বায়োটেকনোলজি বিভাগের  সচিব রেণু স্বরূপ সংবাদ সংস্থা P. T. I. কে বলেন - "দেশের পাঁচ জায়গায় শুরু হবে এই প্রতিষেধকের ট্রায়াল। মোট ১,০০০ জন স্বেচ্ছাসেবকের শরীরে এই প্রতিষেধকের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ করা হবে।"

মারা গেলেন সেনকো গোল্ড এর চেয়ারম্যান (CHAIRMEN) / প্রয়াত হলেন শঙ্কর সেন

প্রয়াত হলেন সেনকো গোল্ডের চেয়ারম্যান এবং কর্ণধার  শঙ্কর সেন তিনি All India Gem and Jewelry Domestic Council এর vice-chairman ছিলেন, মৃত্যু কালে তার বয়েস হয়েছিল ৬২ বছর । তিনি কোভীড - 19 এর কারণে হাসপাতাল এ ভর্তি ছিলেন, ২৮ জুলাই সকাল ৯.৩০ নাগাদ তিনি পরলোক গমন করেন।




প্রমোদ দাগার Secretary OF Calcutta Gem & Jewellers Welfare Association, বলেন  "Our beloved Sri Sankar Sen has left for his heavenly abode today at around 9.20 am. This is very shocking news for the entire industry."

১৯৯০ সালে তিনি যখন ব্যবসার দায়িত্ব নেন সেই সময় মাত্র ৩ টি বিপণি এর মালিক ছিল তার প্রতিস্থান সেখান থেকে তিনি সেনকো গোল্ড কে ইষ্ট ইন্ডিয়া (EAST INDIA) এর সব চাইতে বড় প্রতিষ্ঠান হিসাবে গোরে তুলেন। বর্তমানে সেনকো গোল্ড এর ১০০ টি শাখা পূর্ব ভারত সহ ভারত বর্ষের ১৪ টির বেশি রাজ্য জুড়ে ছড়িয়ে আছে। বাঙালী উদ্যোগ পতি দের কাছে শঙ্কর সেন ছিলেন উপযুক্ত আদর্শ স রূপ।

 "A dynamic personality, a visionary in his own space and complete people's person relentlessly innovative ideas to forge ahead. The void left by his demise today is irreparable," the Indian Chamber of Commerce (ICC) said, condoling his death.




কীভাবে সরষে ইলিস রান্না করবেন - সরষে ইলিশ রান্নার রেসিপি

সরষে ইলিশ রান্নার পদ্ধতি- বন্ধুরা ইলিশ মাছ খেতে কোন বাঙালি না ভালো বাসে বলুন ? আর তাই যদি হয় সরষে দিয়ে ইলিশ তাহলে তো যে কোনও বাঙ্গালির জিভে ...