মঙ্গলবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০

জেনে নিন কিডনি রোগের লক্ষণ গুলি কি কি ? কি উপায়ে কিডনির রোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব ?

জেনে নিন কিডনি রোগের লক্ষণ গুলি কি কি ? কি উপায়ে কিডনির  রোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব ?

কিডনি মানব শরীরের একটি বিশেষ গুরুত্ব পূর্ণ অঙ্গ। প্রতিবছর সারা পৃথিবী তে লাখ লাখ লোক কিডনির রোগ এ অসুস্থ হয়। তাই বন্ধুরা আজকে আমরা জেনে নেব কিডনি কি, কিভাবে কিডনি রোগ হয় আর কি ভাবে এই রোগ কি প্রতিরোধ করা সম্ভব।

বিষয়সূচি - Table of Contents 

  1.  কিডনি কি ?
  2.  কিডনির কাজ কি?
  3.  কিডনি রোগ কি? কি ভাবে বুজবেন কিডনি রোগ হলে?
  4.  কিডনি রোগের লক্ষণ সামুহ কি কি?
  5.  কিডনি রোগ কি ভাবে নির্ণয় করবেন ?
  6.  কিডনি রোগ কি ভাবে নির্ণয় করবেন ?
  7.  কিডনি রোগ কি ভাবে প্রতিরোধ করা সম্ভব

আরও পড়ুন -

কিডনি কি ?

কিডনি হল দুটি শিমের আকারের অঙ্গ। মানব শরীরে পাঁজরের খাঁচার ঠিক নীচে মেরুদণ্ডের দুই পাশে দুটি কিডনি অবস্থিত। স্বাস্থ্যকর কিডনি প্রতি মিনিটে প্রায় আধা কাপ রক্ত ​​ফিল্টার করে, প্রস্রাব তৈরির জন্য বর্জ্য এবং অতিরিক্ত জল অপসারণ করে।

কিডনির কাজ কি?

কিডনি আমাদের রক্তের মধ্যে থেকে দুষিত জলকে বের করে রক্তকে ফিল্টার করে। যার ফলে আমাদের রক্ত সহযে দুষিত হয় না রক্তের মধ্যে তৈরি হওয়া বর্জ্য পদার্থ প্রস্রাবের মাধ্যমে শরীর থেকে বেরিয়ে যায়।  কিডনি আমাদের শরীর থেকে আতিরিক্ত জল মুত্রের মাধ্যমে শরীর থেকে বের করে দেয়।
এছারাও কিডনি মানব শরীরে বিভিন্ন হরমন তৈরি করে যা ব্লাড প্রেসার (Blood Pressure)নিয়ন্ত্রনে সাহায্য করে। শরীরে লহিত রক্ত কণিকা তৈরিতে সাহায্য করে,কিডনির দাড়া উৎপন্ন হরমোন মানুষের শরীরে VITAMIN D (ভিটামিন ডি) তৈরি করে যা শরীরে ক্যালসিয়াম আর ফসফরাসের জরুরি মাত্রা বজায় রেখে হাড় এবং দাঁতের বিকাশ ও মজবুত করার মতো গুরুত্বপূর্ণ কার্য করে থাকে।

কিডনি রোগ কি? কি ভাবে বুজবেন কিডনি রোগ হলে?

কিডনি মানুষের শরীরে একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। যখন আমাদের কিডনি তার স্বাভাবিক কার্য ক্ষমতা হারিয়ে ফেলে,সেই সময় আমাদের শরীরে বিভিন্ন সমস্যা দেখা যায় যে গুলি কে কিডনির রোগ বলা হয়। 
কিডনি রোগ হলে প্রধানত প্রস্রাব এর মাত্রা ও বেগ কমে যায়। এছারাও শরীরে দুষিত রক্তের পরিমান বেড়ে যায় যার ফলে রক্তচাপ বা BLOOD PRESSURE এর সমস্যা দেখা যায়। শরীরে ভিতামিন আভাব ও দেখা দেয় কিডনির রোগের ফলে।

কিডনি রোগের লক্ষণ সামুহ কি কি?

কিডনি রোগ বিভিন্ন রকম হতে পারে, তবে কিডনি রোগ এ প্রধানত যেই সকল সমস্যা দেখা যায় সেই গুলি হল -
  • সকালে ঘুম থেকে ওঠার পরে চোখ ফুলে যাওয়া।
  • মখ মণ্ডল এবং পা ফুলে যাওয়া।
  • ক্ষুধামান্দ্য , বমি ভাব , দুর্বল ভাব।
  • বার বার প্রস্রাবের বেগ , বিশেষ করে রাত্রে।
  • কম বয়সে উচ্চ রক্তচাপ দেখা দিতে পারে।
  • শারীরিক দুর্বল ভাব , রক্ত ফ্যাকাসে হওয়া।
  • অল্প হাঁটার পরে, নি শ্বাস নিতে কষ্ট হওয়া বা তাড়াতাড়ি ক্লাস্তি অনুভব করা।
  • ৬ বছর বয়সের পরেও রাত্রে বিছানায় প্রস্রাব করা।
  • প্রস্রাব কম হওয়া প্রস্রাবের বেগ কমে যাওয়া।
  • প্রস্রাব করার যাওয়া জ্বালা অনুভব করা এবং প্রস্রাবে এর সাথে রক্ত বা পুজ-এর উপস্থিতি।
  • প্রস্রাব করার সময় কষ্ট হওয়া। ফোটা ফোটা করে প্রস্রাব হওয়া।
  • পেটের মধ্যে গিট হওয়া , পা আর কোমরের যন্ত্রণা।
  • লাল রঙের প্রস্রাব হওয়া।
  • তলপেটের নিচে ব্যথা অনুভব করা। কোমরের দুই পাশে ব্যথা আনুভব করা।
সাধারণত কিডনি তে কোনও রোগ হলে মানব শরীরে এই সকল সমস্যা গুলি দেখা দেয়।

কিডনি রোগ কি ভাবে নির্ণয় করবেন ?

কিডনির রোগ এর প্রধান সমস্যা হল কিডনি তে কোনও রকম সমস্যা হলে তা শুরুতে বোঝা সম্ভব হয়ে ওঠেনা অধিকাংশ ক্ষেত্রে। তবে প্রস্রাব এ কোনও রকম সমস্যা দেখা দিলে অথবা উচ্চ রক্তচাপ বা কোমরের পিঠের কোনও ব্যথা আনুভব করলে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে রক্ত পরীক্ষা এবং মেডিকেল পরীক্ষা সমুহ করে নেওয়া উচিৎ।

কিডনি রোগ কি ভাবে প্রতিরোধ করা সম্ভব ?

অনেক রোগের মত কিডনি রোগ ও প্রতিরোধ করা সম্ভব যদি আপনি কিছু নিয়ম মেনে চলেন। প্রত্যাহিক জীবনে আমরা যদি কিছু নিয়ম মেনে চলি তবে কিডনির সমস্যা থেকে সম্পূর্ণ দূরে থাকতে পারবেন। হ্যাঁ এটা সম্ভব।

আপনি যদি কিডনি সঙ্ক্রান্ত সমস্যা থেকে মুক্ত হতে চান অথবা কিডনি রোগ প্রতিরোধ করতে চান তবে নিম্ন লিখিত নিয়ম গুলি মেনে চলুন।

কিডনি রোগ প্রতিরোধ এর সহজ ক্যেক্তি উপায় নিচে বলা হল-
  • বেশি পরিমানে জল খেতে হবে। রোজ সকালে ঘুম থেকে উঠে এবং ঘুম তে যাবার আগে পর্যাপ্ত জল খেতে হবে।
  • নিয়মিত রক্তচাপ পরীক্ষা করতে হবে।
  • মুখ চোখ ফোলা তল পেটে ব্যথা মেরুদণ্ডের নিচে ব্যথা আনুভাব করলে ডাক্তার এর পরামর্শ নিতে হবে।
  • প্রস্রাব এ কোনও রকম সমস্যা হচ্ছে কিনা তা লক্ষ রাখতে হবে।
  • শিশু দের জন্মের পর খাবার এর আভ্যাস পরিবর্তন করতে হবে।
  • নিয়মিত খেলাধুলা, প্রাতঃভ্রমণ, দুইবেলা হাটার অভ্যেস করা, শরীর চর্চা করলে কিডনি তে রোগ এর সম্ভাবনা হ্রাস পায়।
পরিশেষে - সকলকে কিডনি রোগ সম্পর্কে সচেতন করার জন্য অবশ্যই এই প্রতিবেদন টিকে আপনার সোশ্যাল নেটওয়ার্ক এ শেয়ার করুন। আমাদের এই প্রতিবেদনটি কেমন লাগলো অবশ্যই নিচে comment এর মাধ্যমে জানাবেন। সকলে ভালো থাকবেন।

Related Topic -
1. কিডনি কি ? What is kidney?
2. কিডনির কাজ কি? What is the function of kidney?
3. কিডনি রোগ কি? কি ভাবে বুজবেন কিডনি রোগ হলে? What is kidney disease? How to understand if you have kidney disease?
4. কিডনি রোগের লক্ষণ সামুহ কি কি?  What are the symptoms of kidney disease?
5 .কিডনি রোগ কি ভাবে নির্ণয় করবেন ? How to diagnose kidney disease?
6. কিডনি রোগ কি ভাবে নির্ণয় করবেন ? How to diagnose kidney disease?
7. কিডনি রোগ কি ভাবে প্রতিরোধ করা সম্ভব ? How can kidney disease be prevented?

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

কীভাবে সরষে ইলিস রান্না করবেন - সরষে ইলিশ রান্নার রেসিপি

সরষে ইলিশ রান্নার পদ্ধতি- বন্ধুরা ইলিশ মাছ খেতে কোন বাঙালি না ভালো বাসে বলুন ? আর তাই যদি হয় সরষে দিয়ে ইলিশ তাহলে তো যে কোনও বাঙ্গালির জিভে ...