বৃহস্পতিবার, ৩০ জুলাই, ২০২০

দশ বছর পর আবার একসাথে চঞ্চল চৌধুরী, শামীম জামান, আ খ ম হাসান, শাহনাজ খুশি ও বৃন্দাবন দাস - নাটক ‘ট্রাম কার্ড’

শেষ জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘হাড়কিপ্টা’ নাটকে একসঙ্গে দেখা গিয়েছিল চঞ্চল চৌধুরী, শামীম জামান, আ খ ম হাসান, শাহনাজ খুশি ও বৃন্দাবন দাসকে। এরপর টানা দশ বছর কোনো নাটকে একসঙ্গে কাজ করতে দেখা যায়নি তাদের। অভিমান করেই তারা আর একসঙ্গে অভিনয় করেননি শেষ পর্যন্ত  তাদের সেই অভিমান ভাঙলো।

একসঙ্গে অভিনয় করলেন ‘ট্রাম কার্ড’ নাটকে।



বৃন্দাবন দাসের রচনায় নাটকটি নির্মাণ করেছেন শামীম জামান। এরা ছাড়াও অভিনয় করেছেন মৌসুমী হামিদ, আরফান আহমেদসহ অনেকে। নাটকটি এনটিভিতে ইদে প্রচারিত হবে।

এ প্রসঙ্গে শামীম জামান বলেন, "একসঙ্গে কাজ করতে গিয়ে নিজেদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি হয়। ছোট সেই ভুলটি আমাদের এক দশক আলাদা করে রাখে। সাত মাস আগে সিদ্ধান্ত নিই, মান-অভিমান পুষে রাখলে চলে না। আমাদের এই টিমের মধ্যে বোঝাপড়াটা ভালো ছিল।"

শামিন জামান আরো বলেন, "সেই বোঝাপড়াটা ফিরিয়ে আনতে সবার সঙ্গে আবার যোগাযোগ করি। অতঃপর এনটিভির জন্য নির্মিত এ ধারাবাহিকের মাধ্যমে অভিমানের অবসান হলো। ফের একত্রে ফ্রেম বন্দী হয়ে বেশ আনন্দ লাগছে।"

‘ট্রাম কার্ড’ নাটকে আভিনয় প্রসঙ্গে চঞ্চল চৌধুরী বলেন, "আমাদের দেখা হতো, কথা হতো, একত্রে কাজ করা হয়নি। অনেক দিন পর একসঙ্গে কাজ করতে ভালো লাগছে। আমাদের এই টিমের ‘পত্রমিতালি’, ‘গরুচোর’, ‘ঘরকুটুম’, ‘আলতা সুন্দরী’, ‘সাকিন সারিসুরি’র মতো ‘টাম কাড’ নাটকটিও দর্শক পছন্দ করবেন বলে আশা করছি।"


দীর্ঘদিন একসঙ্গে কাজ না করার জন্য দুঃখপ্রকাশ করেন শাহনাজ খুশিও, তিনি বলেন- " বেশ কিছু কারণে আগের টিমের সঙ্গে কাজ করা হয়নি। অবশেষে একসঙ্গে কাজটি করা হলো। ঈদের পরও আগের মতো একসঙ্গে নতুন নাটকে কাজ করা হবে।"


বৃন্দাবন দাস বলেন- "হাড়কিপ্টা’ নাটকে বহু তারকা কাজ করতেন। তাদের খরচ, আমার ও সালাউদ্দিন লাভলুর সম্মানী নিয়ে ভুল-বোঝাবুঝি সৃষ্টি হয়েছিল। দশ বছর পর শামীম আবেগঘন একটা এসএমএস পাঠাল, তখন মনে হলো কাজের জায়গায় আমাদের এক হওয়া দরকার। সেই জায়গা হলো ‘ট্রাম কার্ড’। আশা করবো নাটকটি দর্শকদের ঈদে বিনোদনের খোড়াক জোগাবে।"

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

কীভাবে সরষে ইলিস রান্না করবেন - সরষে ইলিশ রান্নার রেসিপি

সরষে ইলিশ রান্নার পদ্ধতি- বন্ধুরা ইলিশ মাছ খেতে কোন বাঙালি না ভালো বাসে বলুন ? আর তাই যদি হয় সরষে দিয়ে ইলিশ তাহলে তো যে কোনও বাঙ্গালির জিভে ...